Latest: স্বেচ্ছায় মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে নিয়েছিলেন যারা

Latest: স্বেচ্ছায় মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে নিয়েছিলেন যারা

আত্মহত্যা মাহা পাপ, এই কথাটা জানার পরেও অনেক শিল্পীই স্বেচ্ছায় মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে নিয়েছেন। কিন্তু কেনো? এই ‘কোনো এর উত্তর এখনো অজানা। মৃত্যুর পর হয়তো আমরা কিছু কিছু ঘটনা জানতে পারি বা সম্ভাব্য কারণ বিশ্লেষণ করতে পারি। 

কিন্তু চলে যাওয়া ব্যক্তির বিষাদময়তা উপলব্ধি করতে পারি না। তেমই কিছু শিল্পীদের নিয়ে আজকের এই প্রতিবেদন। 

ডলি আনোয়ার

বুদ্ধিজীবী, শিক্ষানুরাগী ও সাহিত্যিক ড. নীলিমা ইব্রাহিমের মেয়ে। পিতা চিকিৎসক। আন্তর্জাতিক চিত্রগ্রাহক আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী। ১৯৯১ সালের ৩ জুলাই হঠাৎ করেই জানা গেল, অভিনেত্রী ডলি আনোয়ার আর নেই। খবর রটল তিনি আত্মহত্যা করেছেন। স্বামীর পরকীয়া ও সেটি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া- এটিই পরবর্তী সময়ে আত্মহত্যার কারণ বলে জানা গেছে। বিখ্যাত ছবি ‘সূর্য দীঘল বাড়ি’তে জয়গুন চরিত্রে অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পান। স্বামী কর্তৃক তালাক ও মায়ের অবহেলাই নাকি এরকম উচ্চশিক্ষিত একটি মেয়েকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিয়েছে। তবে তার মৃত্য নিয়ে রয়েছে বেশ রহস্য।

সালমান শাহ

ঢাকাই মিডিয়ায় এ ডলিকে দিয়ে আত্মহত্যার ইতিহাস রচনা শুরু। এরপর ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ছিল আরো একটি বিষাদের দিন। এদিনে দেশের বেশিরভাগ তরুণের হার্টথ্রব নায়ক সালমান শাহ স্বেচ্ছায় ফাঁসির দড়ি গলায় জড়িয়ে নেন। ক্যারিয়ারে সফলতার শীর্ষে থাকা একজন অভিনেতা কোন অভিমানে নিজের জীবন একেবারে তুচ্ছভাবে বিসর্জন দিয়ে দেয়- সেটি প্রশ্নসাপেক্ষ। কিন্তু এ মৃত্যু ইন্ডাস্ট্রির জন্য শোকের, আক্ষেপের ও যাতনার। যদিও সালমানের মৃত্যু নিয়ে এখনো তার মা ও স্ত্রীর মধ্যে আইনি লড়াই চলছে।

মিতা নূর

এরপর ঢাকাই মিডিয়ায় আত্মহত্যার তালিকা শুধুই বেড়েছে। অভিমানে চলে গেছেন অনেকে। তার মধ্যে অন্যতম অভিনেত্রী মিতা নূর। নব্বই দশকের দারুণ জনপ্রিয় এক অভিনেত্রী ছিলেন তিনি। ২০১৩ সালের ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানে নিজ বাসার ড্রয়িংরুম থেকে অভিনেত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

মঈনুল হক অলি

এ মৃত্যুর রহস্য আজও জানা যায়নি। যদিও তার বাবা এটিকে স্বামীর সঙ্গে পারিবারিক অশান্তি বলেই দাবি করেছেন। মিতা নূরের ঠিক আগের বছর অর্থাৎ ২০১২ সালের ২৭ মার্চ আত্মহত্যা করেন মডেল অভিনেতা মঈনুল হক অলি। তার মৃত্যুর পেছনেও দাম্পত্য কলহ ও বনিবনার অভাবকেই দায়ী করা হয়। পাশাপাশি নিজের ক্যারিয়ার নিয়েও হতাশায় ছিলেন এ অভিনেতা।

২০১৩ সালের ২৪ মার্চ নিজ ফ্ল্যাটে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন লাক্স তারকা সুমাইয়া আসগর রাহা। এখনো এ আত্মহত্যার কোনো কারণ জানতে পারেননি কেউ। তবে তার বাবা মেয়ের মৃত্যু নিয়ে একেকবার একেক রকম তথ্য দিয়েছেন।

পিয়াস রেজা

২০১৪ সালের রোজার ঈদের দিন ফ্যানের সঙ্গে প্রেমিকার ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন ২১ বছর বয়সী সঙ্গীতশিল্পী পিয়াস রেজা। এ মৃত্যুটি যে প্রেমঘটিত ছিল- সেটি আত্মহত্যার ধরন থেকে কিছুটা অনুমান করা যায়। 

লোপা নায়ার

২০১৪ সালে আত্মহত্যা করেন হুমায়ূন আহমেদের ‘এইসব দিন রাত্রি’ ধারাবাহিক নাটকের টুনি চরিত্র রূপদানকারী অভিনেত্রী লোপা নায়ার। তার মৃত্যুর পেছনেও পারিবারিক অশান্তির কারণটিই সামনে উঠে এসেছে।

জ্যাকুলিন মিথিলা

২০১৭ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে চট্টগ্রামের নিজ গ্রামের বাড়িতে আত্মহত্যা করেন অভিনেত্রী জ্যাকুলিন মিথিলা। তিনি মূলধারায় খুব বেশি কাজ না করলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ পরিচিত ছিলেন। কিছুটা বিতর্কিতও ছিলেন।

জাহিন আহমেদ

সেই বছর ২২ জুলাই আত্মহত্যা করেন দেশের অন্যতম সঙ্গীত পরিচালক, মাইলস ব্যান্ডের কিবোর্ডিস্ট মানাম আহমেদের ছোট ছেলে এ প্রজন্মের অন্যতম ব্যান্ড ম্যাকানিক্সের গিটারিস্ট জাহিন আহমেদ। তার মৃত্যুর কারণ পরিবার এখনো জানায়নি।

সর্বশেষ চলতি বছর ৩০ আগস্ট রাজধানীর বারিধারায় নিজের বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন এ প্রজন্মের তরুণ মডেল ও অভিনেত্রী লরেন মেন্ডেস। মৃত্যুর মাত্র দু’দিন আগেও নাটকের শুটিং করেছেন এ অভিনেত্রী। এ মৃত্যুটিও পারিবারিক কলহ ও প্রেমঘটিত কারণে হয়েছে বলে অনেকের ধারণা।

এক গবেষণায় দেখা গেছে- বাংলাদেশে প্রতি বছর গড়ে ১০ হাজার লোক আত্মহত্যা করেন, যাদের মধ্যে নারীর সংখ্যাই বেশি। এদের মধ্যে আবার তরুণ-তরুণীর সংখ্যাই বেশি। আত্মহত্যার চেষ্টা করেন এর চেয়ে আরও ১০ গুণ বেশি মানুষ। শহরের চেয়ে গ্রামে আত্মহত্যার হার ১৭ গুণ বেশি।

Source link

Follow and like us:
0
20

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here