Latest: Central Railways: লকডাউন-আনলক মিলিয়ে ৬১,৯৭৮ টন পার্সেল ফেরি করেছে সেনট্রাল রেল – central railways transported 61,978 tonnes of parcel during corona lockdown, unlock period, creating a new record

Latest: Central Railways: লকডাউন-আনলক মিলিয়ে ৬১,৯৭৮ টন পার্সেল ফেরি করেছে সেনট্রাল রেল – central railways transported 61,978 tonnes of parcel during corona lockdown, unlock period, creating a new record

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ২৫ মার্চ থেকে সারা দেশে শুরু হয়েছিল করোনা সংক্রমণ রোধে পূর্ণ লকডাউন। জুন মাস থেকে ধাপে ধাপে আনলক চালু হয়। এই গোটা সময়ের মধ্যে সেনট্রাল রেলওয়ে ৬১,৯৭৮ টন পার্সেল চালান করেছে। সেপ্টেম্বর ১০ তারিখ পর্যন্ত এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে। পার্সেলের মধ্যে একদিকে যেমন ছিল ওষুধ, ফার্মা প্রডাক্ট তেমনই ছিল খাবার ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী।

২৩ মার্চ থেকে করোনা সংক্রমণ রোধে সারা দেশ জুড়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। তবে পরবর্তী সময়ে চালানো হয়েছে কিছু বিশেষ ট্রেন এবং পার্সেল ট্রেন যাতে সারা দেশে প্রয়োজনীয় সামগ্রী এবং জীবনদায়ী ওষুধের কোনও অভাব দেখা না দেয়। প্রয়োজনীয় দ্রব্যের সাপ্লাই চেইনে যাতে কোনও ছেদ না পড়ে তা সুনিশ্চিত করতে ভারতীয় রেল চালু করেছিল এক্সপ্রেস ট্রেন।

সেপ্টেম্বর ১০ তারিখ পর্যন্ত সেনট্রাল রেল মোট ৪৬৫টি পার্সেল ট্রেন চালিয়েছে। আর এর মারফত দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে ৩৮,৬১৮ টন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় সামগ্রী, ফার্মা প্রডাক্ট, ওষুধ, ই-কমার্স দ্রব্য এবং অন্যান্য পার্সেল। রেলের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চালানো হবে এই সব পার্সেল এক্সপ্রেস ট্রেন। ১ জুন থেকে চালু হওয়া বেশ কিছু স্পেশাল ট্রেনের মাধ্যমে সেনট্রাল রেলওয়ে ১৯,২৯০ টন পার্সেল ফেরি করেছে। করোনা আবহে, কেন্দ্রীয় রেল মন্ত্রক প্রথম কিসান রেল চালু করে সেনট্রাল রেলওয়েতে গত ৭ অগস্ট। দেবলালি থেকে দানাপুর পর্যন্ত চলাচল করা এই ট্রেনগুলি চালু হয়েছিল কৃষকদের সাহায্য করার কথা মাথায় রেখে, যাতে তাঁরা চাষের সামগ্রী দ্রুত বিভিন্ন জায়গায় পৌঁছে দিতে পারেন, এবং লোকসানের হাত থেকে বাঁচতে পারেন।

আরও পড়ুন: আরও ১০০ স্পেশ্যাল ট্রেনের ভাবনা কেন্দ্রের, বাংলার ঝুলিতেও বেশ কিছু…
সুখবর! হাওড়া থেকে এবার সপ্তাহে ৩ দিন চলবে এই স্পেশ্যাল ট্রেন….
তীর্থযাত্রীদের জন্য সুখবর, ৩২৭ কিমি লম্বা রেলপথে জুড়ে যাবে চারধাম

এই উদ্যোগ কৃষকদের থেকে ভালো সাড়া পাওয়ার পরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বাড়ানো হবে রুট। চালু করা হয় মুজাফরপুর থেকে সাংগোলা এবং পুনে থেকে মানমাদ পথে কিসান রেল। ৮ সেপ্টেম্বর থেকে সপ্তাহে তিনবার চলে এই ট্রেন। এখনও পর্যন্ত কিসান রেল ১০টি ট্রিপ করেছে এবং ফেরি করেছে বেদানা, ক্যাপসিকাম, কাঁচালঙ্কা, আদা, লেবু, মাছের মতো ২২০০ টন সামগ্রী।

এই মুহূর্তে সারা দেশে ২৩০টি যাত্রীবাহী স্পেশ্যাল ট্রেন চালাচ্ছে রেল মন্ত্রক, তাও মাত্র ৭৫ শতাংশ যাত্রী নিয়ে! যে কারণে বিপুল ক্ষতির মুখেও পড়তে হচ্ছে রেলকে। সেইসঙ্গে যাত্রীদেরও বিপুল সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। একইসঙ্গে দেশজুড়ে মঙ্গলবার থেকেই চালু হল আনলক-৪। তাই এই মুহূর্তে লোকাল বা প্যাসেঞ্জার ট্রেন স্বাভাবিকভাবে চালু না হলেও স্পেশ্যাল ট্রেনের সংখ্যা বাড়াতে চাইছে রেল। সেই সূত্রেই দেশজুড়ে আরও ১০০টি মতো স্পেশ্যাল ট্রেন চালু করার ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে রেল মন্ত্রক।

এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন

Source link

Follow and like us:
0
20

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here