Latest: Jammu Kashmir: কাশ্মীরের বারামুলায় গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার গ্রেনেড-গুলি, গ্রেফতার লস্করের ২ – jammu and kashmir: security forces arrest two let affiliates in baramulla, recover ammunition

Latest: Jammu Kashmir: কাশ্মীরের বারামুলায় গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার গ্রেনেড-গুলি, গ্রেফতার লস্করের ২ – jammu and kashmir: security forces arrest two let affiliates in baramulla, recover ammunition

হাইলাইটস

  • বারামুলায় উদ্ধার গোলাবারুদ
  • একে-৪৭ এর গুলি, গ্রেনেড উদ্ধার
  • মারুতি গাড়ি করে জঙ্গিদের জন্য গোলাবারুদ পাচার করা হচ্ছিল
  • গ্রেফতার গাড়িতে থাকা ২ জন
  • ধৃতরা লস্করের সদস্য বলে দাবি করে পুলিশ

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: বুধবার রাতে জম্মু-কাশ্মীরের বারামুলায় অভিযান চালিয়ে প্রচুর পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করল সুরক্ষা বাহিনী। গ্রেফতার করা হয়েছে দু-জনকে। ধৃতরা লস্কর-ই-তৈবার সঙ্গে যুক্ত বলে কাশ্মীর পুলিশের তরফে দাবি করা হয়েছে।

কাশ্মীর পুলিশের একটি সূত্র জানাচ্ছে, বুধবার তাদের কাছে জঙ্গি কার্যকলাপের খবর আসে। সেইমতো ভারতীয় সেনা, কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনী, সিআরপিএফ ও কাশ্মীর পুলিশের যৌথ টিম সজাগ হয়। বারামুলার বিভিন্ন চেক পেয়েন্টে শুরু হয় তল্লাশি।

এদিন বেলার দিকে একটি সাদা রঙের মারুতির চালকের ভাবগতিক দেখে সন্দেহজনক মনে হয় যৌথ বাহিনীর। বারামুলার সিংহপোরা ক্রসিংয়ে, যৌথ চেকপোস্টে পতাকা দেখিয়ে গাড়িটিকে থামতে বলা হয়। মারুতিতে তল্লাশি চালিয়ে দু’টি গ্রেনেড, একে-৪৭ এর ১০০ রাউন্ড গুলি, নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈবার দু’টি লেটার প্যাড পায় যৌথ বাহিনী। গ্রেফতার করা হয় মারুতিতে থাকা দুই ব্যক্তিকে। গাড়িটিও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

পুলিশের দাবি, জেরায় ধৃতরা লস্করের সঙ্গে তাদের জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। এই দু-জনকে জেরা করে পুলিশ জানতে পারে, ধৃতরা লস্করের ওভার গ্রাউন্ড ওয়ার্কার (OGW)। ধৃতদের বিরুদ্ধে বারামুলা থানায় আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। ধৃতরা গোলাবারুদ নিয়ে কার কাছে, কোথায় যাচ্ছিল, পুলিশ তা জানার চেষ্টা করছে।

জম্মু-কাশ্মীর সীমান্তে নিরাপত্তা যে সম্পূর্ণ নিশ্ছিদ্র করা যায়নি, তা মেনে নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। কেন্দ্রের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, গত এক বছরে কমপক্ষে ১১১ বার অনুপ্রবেশে সক্ষম হয়েছে জঙ্গিরা। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী জি কিষান রেড্ডি মঙ্গলবার লোকসভায় এই তথ্য পেশ করেন। তিনি আরও জানান, চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে অগস্টের মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ১৩৮ জঙ্গি মারা পড়েছে।

কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালের অগস্ট থেকে ২০২০ সালের জুলাই পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরে ১৭৬ বার জঙ্গি অনুপ্রবেশের চেষ্টা হয়েছে। ১১১ ক্ষেত্রে অনুপ্রবেশকারীরা সাফল্য পেয়েছে। লিখিত জবাবে এই তথ্য দেন জি কিষান রেড্ডি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী বলেন, জম্মু-কাশ্মীর গত তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে সন্ত্রাসবাদের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সরাসরি পাকিস্তানের নামোল্লেখ না করে তিনি বলেন, সীমান্তের ওপার থেকে স্পনসর শুধু নয়, জঙ্গিপনায় সমর্থনও জোগানো হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে কোনওরকম সহনশীলতা দেখাবে না কেন্দ্র। এ ক্ষেত্রে ‘জিরো টলারেন্স’ কৌশল নিয়েছে কেন্দ্র। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে পালটা জোরদার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনী। যার জেরে ২০২০ সালের ১ মার্চ থেকে ২০২০ সালের ৩১ অগস্টের মধ্যে ১৩৮ জঙ্গিকে নিকেশ করা সম্ভব হয়েছে। এই ছ-মাসে সুরক্ষা বাহিনীর ৫০ জন শহিদও হয়েছেন। সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন, ক্রস-বর্ডার ফায়ারিং,জঙ্গি হামলার মতো একাধিক ঘটনা এই মৃত্যুর কারণ।

এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন।

Source link

Follow and like us:
0
20

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here