Latest: করোনার লাগাম টানতে ৬ দিনের লকডাউনে দিল্লি

Latest: করোনার লাগাম টানতে ৬ দিনের লকডাউনে দিল্লি

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুই লাখ ৭৩ হাজার ৮১০ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এটিই এখন পর্যন্ত দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত। এমনকি এটিই এখন পর্যন্ত বিশ্বেও একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত।

দেশের সংবাদ মাধ্যম খবরে বলা হয়েছে, রাজধানী দিল্লিতে করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতির লাগাম টানতে আজ রাত দশটা থেকে পরের আগামী সোমবার সকাল পাঁচটা পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই ঘোষণা দিয়েছেন।

এই ৬ দিন বেসরকারি অফিসগুলোতে বাড়ি থেকে কাজ করতে হবে। সরকারি অফিস, জরুরি পরিষেবা চালু থাকবে। টানা ৬ দিনের লকডাউনে ওষুধের দোকান, খাবারের পরিষেবা, ব্যাঙ্ক, এটিএম, খবরের কাগজ চালু থাকবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে। তবে ধর্মীয়, সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানে জমায়েত করা যাবে না। মোট ৫০ জন উপস্থিত থাকতে পারেন বিয়ের অনুষ্ঠানে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লি রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণ হওয়ায় চিন্তিত সাধারণ মানুষ। রবিবার মোট ২৫ হাজার ৪৬২ কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন। সংক্রমণের হার বেড়েছে ৩০ শতাংশ। অর্থাৎ প্রতি তিনটি টেস্টের মধ্যে পজিটিভ হচ্ছেন একজন মানুষ।

আরও পড়ুন : মহারাষ্ট্রে প্রতি তিন মিনিটে একজন করোনা রোগির মৃত্যু

অরবিন্দ কেজরিওয়াল শ্রমিকদের উদ্দেশে জানিয়েছেন, এই লকডাউনে যাতে তারা শহর না ছাড়েন। সকলকেই সমস্ত কোভিডবিধি মেনে লকডাউনে ঘরবন্দি থাকার আবেদন করেছেন তিনি। সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নিতে তিনি বাধ্য হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি লকডাউনের মধ্যে রোগীদের জন্য বেডের সংখ্যা, অক্সিজেনের পরিমাণ এবং ওষুধের জোগান বাড়ানোর দিকে বিশেষ নজর দেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, টানা পঞ্চম দিনের মতো দেশে দৈনিক দুই লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হলো। এখন পর্যন্ত দেশটিতে এক কোটি ৫০ লাখ ৬১ হাজার ৯১৯ জন শনাক্ত হয়েছেন। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও এক হাজার ৬১৯ জন। এটিই এখন পর্যন্ত দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। করোনায় এ পর্যন্ত ভারতে মারা গেছেন এক লাখ ৭৮ হাজার ৭৬৯ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও এক লাখ ৪৪ হাজার ১৭৮ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ২৯ লাখ ৫৩ হাজার ৮২১ জন।

সোমবার সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। এরপর রয়েছে কেরালা, কর্ণাটক, তামিল নাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি ও উত্তর প্রদেশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মহারাষ্ট্রে শনাক্ত হয়েছেন ৬৮ হাজার ৬৩১ জন। ভারতে করোনার সংক্রমণ শুরুর পর থেকে এটিই মহারাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত।

দেশে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ১২ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরটি-পিসিআর ও অ্যান্টিজেন পদ্ধতিতে ১৩ লাখ ৫৬ হাজার ১৩৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আর এখন পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ২৬ কোটি ৭৮ লাখ ৯৪ হাজার ৫৪৯টি নমুনা।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ জানুয়ারি দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের তথ্য অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে ভারতের অবস্থান দুই নম্বরে। ভারতের আগে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পরে ব্রাজিল।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ কোটি ১৪ লাখ চার হাজার ৮৪৭ জন এবং মারা গেছেন ৩০ লাখ ১৯ হাজার ৩৩০ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন আট।



Source

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here