Latest: কাশ্মীরের হারানো গৌরব ফেরাবে বলিউড: বিদ্যা বালান

Latest: কাশ্মীরের হারানো গৌরব ফেরাবে বলিউড: বিদ্যা বালান

নৈসর্গিক দৃশ্যের আকর্ষণে ফের ছন্দে ফিরছে ভূস্বর্গ। করোনা মহামারির আতঙ্ক ফিকে হতেই দলে দলে পর্যটকরা ভিড় করছেন উপত্যকায়।

পুরোদমে চলছে শ্যুটিং। বরফে নানা অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের টানে গুলমার্গের হোটেলগুলিতে জায়গা পাওয়া দুষ্কর। শ্যুটিংয়ের জন্য আগামী দিনে আরও বেশি করে বলিউড ভিড় করবে উপত্যকায়— গুলমার্গের উইন্টার ফেস্টিভালে এসে এমনই আশার কথাই শুনিয়েছেন বলিউডের তারকা বিদ্যা বালান, আরবাজ খানরা।

উত্তর কাশ্মীরের বারামুলার গুলমার্গে দু’দিনের শীতকালীন উৎসবের উদ্যোক্তা ছিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। কাশ্মীরের নামী শিল্পীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, হাতের কাজের প্রদর্শনীর পাশাপাশি এই উৎসবের মূল আকর্ষণ ছিল নানা ধরনের অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টস।

আরও পড়ুন : প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে যা বললেন মিয়া খলিফা

স্কিইং, স্নোমোবাইল, এটিভি রেস, স্নো সাইক্লিং— তালিকায় ছিল সবই। দু’দিনের এই উৎসবের ফাঁকে জিওসি (ড্যাগার ডিভিসন) বীরেন্দ্র ভাট জানালেন, এই উৎসব একদিকে স্থানীয় প্রতিভাদের তুলে ধরবে, তেমনি কাশ্মীরের পর্যটনশিল্পকে চাঙ্গা করার ক্ষেত্রেও এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। আরবাজ খান, বিদ্যা বালান, সিদ্ধার্থ রায় কাপুরের মতো বলিউডের সেলিব্রিটিরা উপস্থিত থাকায় এই উৎসব একটা আলাদা মাত্রা পেয়েছে। এই উৎসব দেখিয়ে দিয়েছে, পর্যটকদের স্বাগত জানাতে কাশ্মীর পুরোপুরি প্রস্তুত।

অন্যদিকে, উপত্যকার মানুষের আতিথেয়তা ও আন্তরিকতায় মুগ্ধ উৎসবের বিশেষ অতিথিরাও।

আরবাজ, বিদ্যারা জানিয়েছেন, উপত্যকায় উষ্ণ অভ্যর্থনা ও আন্তরিকতায় তারা মুগ্ধ। আগামীদিনে বলিউডের আরও বেশি তারকা এখানে আসবেন। এই অভিনব উদ্যোগের জন্য ভারতীয় সেনাবাহিনীকে কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন আরবাজ। এটিই তাঁর প্রথম কাশ্মীর সফর। তার আক্ষেপ, ‘ইস, এর আগে কেন এখানে আসিনি?’ তার আশ্বাস, ভারতীয় সেনাবাহিনীর কড়া নজরদারির কারণে পর্যটকরা নিরাপদে এখানে ঘুরে যেতে পারেন।

অন্যদিকে, বিদ্যা বালান জানিয়েছেন, তার বাবা-মা এখানে মধুচন্দ্রিমায় এসেছিলেন। তিনি বলেন, ‘আমি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরেছি। কিন্তু, কাশ্মীরের তুলনাই আলাদা। ’

সিদ্ধার্থ রায় কাপুর জানান, এক সময় শ্যুটিংয়ের জন্য বলিউডের সেরা গন্তব্য ছিল কাশ্মীর। উপত্যকার সেই গৌরবময় অতীতকে ফের ফিরিয়ে আনতে হবে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে, দু’বছর পর এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। কাশ্মীর যে তার যাবতীয় আকর্ষণ নিয়ে পর্যটকদের স্বাগত জানাতে প্রস্তুত, সেই বার্তা পৌঁছে দিতেই এই উৎসব।

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here