Latest: প্রতিদিনের যে ৫ ভুলে মুখে ব্রণ ওঠে

Latest: প্রতিদিনের যে ৫ ভুলে মুখে ব্রণ ওঠে

প্রতিদিনের যে ৫ ভুলে মুখে ব্রণ ওঠে

মুখমণ্ডল ব্রণ বা ব্ল্যাকহেডে ভরে গেছে? আপনি হয়তো নিজেকে প্রশ্ন করেছেন যে কেন এত বেশি ব্রণ ওঠেছে। ব্রণের সবচেয়ে স্পষ্ট কারণগুলোর একটি হলো- ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যাওয়া।

অর্থাৎ অপরিষ্কার ত্বকের ছিদ্র যা নোংরাতে ভর্তি থাকে। এটি ব্রণের অন্যতম প্রধান কারণ। তাই মুখমণ্ডলে ব্রণ এড়াতে ত্বকের ছিদ্রকে বন্ধ করে দেয় এমন অভ্যাসগুলো বর্জন করতে হবে। এখানে মুখমণ্ডলে ত্বকের ছিদ্র বুজে ব্রণ ওঠার পাঁচটি কারণ উল্লেখ করা হলো।

ব্যায়ামের সময় মেকআপ ব্যবহার: মেয়েদের একটি প্রবণতা হলো সবখানে নিজেদেরকে সুন্দরী হিসেবে উপস্থাপনের প্রচেষ্টা। কিন্তু ব্যায়াম ও মেকআপ একসঙ্গে যায় না। ব্যায়ামের সময় মেকআপ ত্বকের ছিদ্রকে বুজে দেয়। কারণ, মেকআপ নিয়ে ব্যায়াম করলে ত্বকের ছিদ্রে ঘাম ও ব্যাকটেরিয়া আটকে থাকে। তাই ত্বকের ছিদ্রকে উন্মুক্ত রেখে ঘাম ঝরাতে ও ব্রণ এড়াতে ব্যায়ামের আগে সকল মেকআপ তুলে ফেলুন।

আরও পড়ুন : মাত্র তিনদিনে শীতকালে পা ফাঁটা চিরতরে দূর করার দারুন কার্যকরী কৌশল, যেভাবে করবেন, রইলো স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি!

ত্বকের মৃতকোষ দূর না করা: এখানে এক্সফোলিয়েশনের কথা বলা হচ্ছে। নিয়মিত এক্সফোলিয়েশন না করলে, অর্থাৎ ত্বকের মৃতকোষ দূর না করলে ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যাওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। ত্বকের ছিদ্র খুলতে অথবা উন্মুক্ত রাখতে সপ্তাহে এক-দুই বার কার্যকর স্ক্রাব দিয়ে ত্বককে স্ক্রাব করা প্রয়োজন। এতে ব্রণের প্রবণতা কমে আসবে।

ভুল মেকআপের ব্যবহার: ত্বকের ছিদ্রকে খোলা রাখতে নন-কমিডোজেনিক মেকআপ ব্যবহার করুন। নন-কমিডোজেনিক প্রোডাক্টের মানে হলো প্রোডাক্টটি ত্বকের ছিদ্রকে বুজে দেবে না। ত্বকের ছিদ্র উন্মুক্ত থাকলে মুখমণ্ডলে ব্রণ বা ব্ল্যাকহেডের প্রবণতাও কমে যাবে।

আরও পড়ুন : মেকআপে নতুনত্বের ছোঁয়া আনুন নীল মাসকারায়

অপরিষ্কার বালিশের কভারে ঘুমানো: বালিশের কভার ও বিছানার চাদর নিয়মিত ধুতে অলসতা কাজ করলে ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। অপরিষ্কার বালিশের কভার ও বিছানার চাদরে ব্যাকটেরিয়া ও অন্যান্য জীবাণু থাকে যা ঘুমানোর সময় সহজে ত্বকে চলে আসতে পারে। ফলে ত্বকের ছিদ্র বুজে যাবে ও প্রতিক্রিয়া হিসেবে ব্রণ ওঠবে।

অপরিষ্কার মোবাইল ফোন ব্যবহার: আপনি মনে করতে পারেন যে এটা একটি অযৌক্তিক কথা, কিন্তু বাস্তবতা হলো- অপরিষ্কার মোবাইল ফোনের ব্যবহারে ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যেতে পারে। একটি অপরিষ্কার মোবাইল ফোনে যে কত রকমের জীবাণু থাকে তার হিসাব নেই। ফোনে কথা বলার সময় এসব জীবাণু মুখের সংস্পর্শে চলে আসে। এভাবে ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে যায় ও ব্রণ সৃষ্টি হয়। তাই নিয়মিত অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল ওয়াইপ দিয়ে ফোন মুছে নিন।

 Read on the original site 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here