Latest: ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বৃদ্ধ বাবা-মা, গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা – Kolkata24x7

Latest: ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বৃদ্ধ বাবা-মা, গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা – Kolkata24x7

স্টাফ রিপোর্টার ,বারাকপুর : ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা বৃদ্ধ দম্পতির। বৃদ্ধ বিশ্বনাথ দাস ও সবিতা দাস শ্যামনগর পীড় তলার বাসিন্দা।এক ছেলে এক মেয়ে রয়েছে ওই বৃদ্ধ দম্পতির।মেয়ের বিয়ে হয়ে গিয়েছে শেওড়াফুলিতে। বেসরকারি জুট মিলের অবসর প্রাপ্ত শ্রমিক বিশ্বনাথ বাবু। সামান্য পেনশন পান তিনি।বিশ্ব নাথ বাবুর ছেলে বিপুল দাস কাঠ মিস্ত্রির কাজ করেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ বিশ্বনাথ বাবুর ছেলে বিপুল দাস প্রায়শই বাবা মাকে মারধোর করত।রবিবার সকালেও তার অন্যথা হয়নি। এরপর বাবা মা ছেলের এই অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

গঙ্গার পারে থাকা লোকজন ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে গঙ্গায় নামতে দেখলে তাদের সন্দেহজনক মনে হয়। বৃদ্ধ দম্পতি গঙ্গায় ঝাঁপ দিলে গঙ্গার ঘাটে উপস্থিত স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ও জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকেন।বৃদ্ধ ও বৃদ্ধা প্রথমে কিছু বলতে না চাইলেও পরে কান্নায় ভেঙে পরেন ও গোটা বিষয়টি জানান।

এরপর জগদ্দল থানায় খবর দেওয়া হয়। ওসি দেবর্ষি সিনহা সুমিত সাহা নামে এক সাব ইন্সেপেক্টরকে পাঠান। তিনি নির্দেশ দেন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে।কিন্তু পুলিশের কাছে ছেলের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করতে মানা করেন অসহায় বাবা মা ।

এরপর পুলিশ বিশ্বনাথ বাবুর বাড়িতে গিয়ে তার ছেলেকে বুঝিয়ে বাবা মাকে বাড়িতে রেখে আসেন। পুলিশের তরফ থেকে বৃদ্ধ বাবা মা কে এবং প্রতিবেশীদেরকেও ফোন নম্বর দিয়ে আসেন, যাতে ওই বৃদ্ধ দম্পতির কোনো সমস্যা হলে প্রতিবেশীরা সব ঘটানা যেন পুলিশকে জানান তার জন্য আবেদন জানিয়ে যান।

এদিন জগদ্দল থানার পুলিশ বৃদ্ধ দম্পতি কে তাদের বাড়িতে ফিরিয়ে দিতে এলে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন ওই বৃদ্ধ দম্পতি। তাদের তার এদিন বৃদ্ধ বিশ্ব নাথ বাবু বলেন “আমার ছেলে আমাদের ভীষন মারধর করে,মারতে মারতে মাটি তে শুয়ে দেন।এই অত্যাচার কত সহ্য করা যায় ।আজ সকালে ছেলে খেতে চাই ছিলো।ওর মার একটু দেরি হচ্ছিলো খাবার দিতে তাই ছেলে সেই অপরাধে আমাদের বেধরক মারধর করে।
আর সহ্য না করতে পেরে আমরা গঙ্গায় ঝাঁপ দিতে গিয়েছিলাম।”

তবে এত অত্যাচার সহ্য করেও ওই বৃদ্ধ দম্পতি তাদের এক মাত্র ছেলে কে পুলিশের হাতে তুলে দিতে চাননি। জগদ্দল থানার পুলিশও বাবা মা র এই আবেদন মেনে নিয়ে বিশ্বনাথ বাবুর ছেলেকে ছেঁড়ে দেন।

এদিকে বৃদ্ধ বাবা মা কে মারধর করে বাড়ি থেকে বেড় করে দেওয়ার কথা জগদ্দল থানার পুলিশের কাছে স্বীকার করে নেন বিপুল দাস ।সেই সঙ্গে বিপুল মুচলেকা দেয় যে আগামী দিনে সে আর তার বাবা মা কে অত্যাচার করবে না।

প্রশ্ন অনেক: অষ্টম পর্ব

ঝাড়খণ্ডের আদিবাসী সম্প্রদায় থেকে উঠে আসা এক আন্তর্জাতিক মানের চিত্র পরিচালকের গল্প

Source link

Follow and like us:
0
20

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here