Latest: ব্যাবসার মন্দাকালে বিশ্বকর্মাও রংহীন

Latest: ব্যাবসার মন্দাকালে বিশ্বকর্মাও রংহীন

এই সময়: নাকতলার ছোট ফ্যান ফ্যাক্টরিটায় মানেই অন্য এক আনন্দ। খাওয়াদাওয়া, হইহুল্লোড় চলে অনেক রাত পর্যন্ত। কিন্তু এ বার পুজো হবে নমো নমো করে। মালিক সানি সাহা বলছিলেন, ‘এ বার আর বিশ্বকর্মা পুজোয় কোনও আনন্দ হবে না। টানা লকডাউনে পুরো বাজার মার খেয়ে গেল। তাই খুব ছোট করে পুজো হবে।’ গড়িয়াহাটে সোনার দোকান রাজা দত্তের। প্রতি বছর কর্মচারীদের নিয়ে ধুমধাম করে বিশ্বকর্মা পুজো করেন। কিন্তু এ বার রাজা কর্মচারীদের আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, শুধু পুরুত এসে পুজো সেরে যাবেন। আর কোনও কিছু হবে না।

সানি, রাজাদের কথারই প্রতিধ্বনি শহরের নানা প্রান্তে। দেশে আনলক-৪ পর্ব শুরু হলেও ব্যবসা-বাণিজ্য, কলকারখানা এখনও পুরোদমে চালু হয়নি। তার উপর থেকে চেপে বসা মন্দা তো আছেই। তার জেরে জৌলুসহীন ভাবে কেটেছে বাংলা নববর্ষ, ঈদ, রথযাত্রা। বাদ পড়ছে না বিশ্বকর্মা পুজোও। দু’দিন পর পুজো, শহরে তার ছাপ নেই। অটো এবং রিকশাচালকদের উদ্যোগে প্রতিবার রাস্তার ধারে, কয়েক হাত অন্তর পুজোর যে আয়োজন চোখে পড়ত, সোমবার পর্যন্ত তার দেখা মেলেনি। লকডাউনের ধাক্কা এখন সামলে উঠতে পারেননি তাঁরা। বউবাজারের স্বর্ণব্যবসায়ীদের অনেকের ওয়ার্কশপে এখন সাঁঝবাতি দেওয়াও বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ফলে হাতে গোনা কয়েকটিতে হবে পুজো। উৎসব-আনন্দের লেশমাত্র নেই সেখানে। দক্ষিণ কলকাতার অটো ইউনিয়নের নেতা দেবরাজ ঘোষ বলছেন, ‘খুব ছোট করে করে পুজো হবে।’ দুই ব্যস্ত অটো রুট রানিকুঠি-বাঘা যতীন এবং রানিকুঠি-যাদবপুর রুটের ইউনিয়নের নেতা তারক সরকার, পাপ্পু মজুমদারেরা জানালেন, এ বার তাঁদেরও পুজো হবে টিম টিম করে। লেকটাউনের রিকশাচালক বুবুন ঘোষের মন খারাপ, ‘প্রতিবার স্ট্যান্ডে বড়ো করে পুজো হয়। এ বার আর হবে না।’

কম্পিউটার সারাইয়ের কাজ করেন মানিকতলার বাসিন্দা বিভাস গুহ। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকবার বিশ্বকর্মা পুজোয় বন্ধুদের নিয়ে খাওয়াদাওয়া করি। এ বার কাউকে বলিনি।’ দক্ষিণ কলকাতার বিজয়গড়ের ইমারত ব্যবসায়ী প্রবাল রায় দুঃখ করছিলেন, ‘নেহাত না-করলেই নয়, তাই পুজোটা করছি। লকডাউনে তো ব্যবসাই হয়নি!’প্রতি বছর সোনারপুর থেকে বিশ্বকর্মা বানিয়ে এনে যাদবপুরের ফুটপাথে বিক্রি করেন প্রতিমাশিল্পী প্রতাপ পাল। তাঁর কথায়, ‘প্রতিবার বিভিন্ন মাপের ৫০০টা মূর্তি আনি। এ বার গতিক বুঝে মাত্র ৫০টা এনেছি। তাও বিক্রি নেই!’

এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড।

Source link

Follow and like us:
0
20

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here