Latest: টাকা তছরূপে ধৃত কলেজের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষা

Latest: টাকা তছরূপে ধৃত কলেজের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষা

অভিযোগ দায়ের হওয়ার প্রায় তিন বছর পরে গ্রেফতার হলেন কলেজ তহবিলের প্রায় ৭৫ লক্ষ টাকা তছরূপে অভিযুক্ত এক অধ্যাপিকা। শনিবার ঝাড়গ্রাম শহরের বাড়ি থেকে সুতপা ঘোষ নামে ওই অধ্যাপিকাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতের বিরুদ্ধে ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষার দায়িত্বে থাকাকালীন কলেজ তহবিলের সাড়ে ৭৪ লক্ষ থাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। সুতপা ঝাড়গ্রাম জেলার জামবনি ব্লকের কাপগাড়ি এলাকার সেবাভারতী কলেজের অধ্যাপিকা। এদিন তাঁকে ঝাড়গ্রাম আদালতে তোলা হলে ১২ দিন জেল হেফাজতের নির্দেশ হয়। পরে তিনি অসুস্থ বোধ করায় তাঁকে ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সরকারি আইনজীবীর সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৬ সালের আগস্টে সুতপা ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষার পদ থেকে সরেন। নতুন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ড. বিনোদ চৌধুরী দায়িত্ব নেওয়ার পরে সুতপার আমলের আর্থিক গরমিল ধরা পড়ে। ওই বিপুল অঙ্কের থাকা সুতপা কিভাবে খরচ করেছেন সে ব্যাপারে কলেজ পরিচালন সমিতি তাঁর কাছে লিখিত ভাবে জানতে চায়। সুতপা জবাব না দেওয়ায় তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়।

আরও পড়ুন : ‘পুলিশ ভাইদের’ পদ্মফুলে ভোট দিতে বললেন ভারতী ঘোষ

সুতপা পাল্টা কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আদালত তাঁর সাসপেনশনের উপর স্থগিতাদেশ দেয়। তিনি কলেজের অধ্যাপিকা হিসেবে কাজ করতে থাকেন। এরপরে ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারি কলেজ কর্তৃপক্ষ সুতপার বিরুদ্ধে জামবনি থানায় অভিযোগ দায়ের করে। প্রতারণা ও সরকারি অর্থ আত্মসাতের ধারায় মামলা রুজু হলেও পুলিশ সুতপাকে গ্রেফতার করতে গড়িমসি করে বলে অভিযোগ। এ ব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষ টাকা ফেরতের স্বার্থে সুতপার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপের দাবিতে ঝাড়গ্রাম আদালতে আবেদন করেন। আদালত পুলিশকে সক্রিয় হতে বলার পরেই এদিন গ্রেফতার হন সুতপা।

সুতপা অবশ্য আদালতে দাবি করেন, তিনি একা টাকা তোলেননি। ওই সময়ে কলেজ পরিচালন সমিতির সভাপতি সুকুমার হাঁসদাও টাকা তোলার জন্য ব্যাঙ্কের চেকে সই করেছিলেন। সুকুমার অবশ্য মাস দেড়েক আগে প্রয়াত হয়েছেন। সুতপার আইনজীবী কৌশিক সিনহা বলেন, “প্রকৃত অভিযুক্তদের আড়াল করার জন্য আমার মক্কেলকে মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে।”



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here