Latest: অভিষেক গড়ে তৃণমূলে ভাঙন, দল ছাড়লেন ডায়মন্ডহারবারের বিধায়ক

Latest: অভিষেক গড়ে তৃণমূলে ভাঙন, দল ছাড়লেন ডায়মন্ডহারবারের বিধায়ক


দীর্ঘদিন কোন দলের কিংবা সরকারি অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি ডায়মন্ড হারবারের বিধায়ক দীপক হালদারে। দীর্ঘদিন কোন কাজ করতে না দেওয়ার অভিযোগে তৃণমূল কংগ্রেস দল ছাড়লেন ডায়মন্ড হারবার বিধানসভার বিধায়ক দীপক হালদার।

সোমবার তৃণমূল কংগ্রেস জেলা সভাপতি ও রাজ্য সভাপতির কাছে স্পিরিড পোস্টের মাধ্যমে চিঠি পাঠিয়ে দল ছাড়লেন ডায়মন্ড হারবার বিধানসভার বিধায়ক দীপক হালদার হালদার। তৃণমূল কংগ্রেস দল ছাড়লেও এখনও পর্যন্ত বিদায়ক পদ ছাড়েনি বিধায়ক দীপক হালদার।

সোমবার নিজের দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে মাধ্যমে দল ছাড়ার কথা জানান। ডায়মন্ড হারবার বিধানসভার বিধায়ক দীপক হালদার সাংবাদিকদের জানান , দীর্ঘদিন ধরে তাকে ঠিক ঠিক মতো কোন কাজ করতে দেওয়া হয় নি। তিনি আক্ষেপের সঙ্গে জানান , ১৯৮৫ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে যুব কংগ্রেসের রাজনীতি করে আসছি। তারপর ১৯৯৮ সালে তৃণমূল কংগ্রেস গঠন হওয়ার পর তৃণমূল কংগ্রেস করছি। গত সাড়ে চার বছর ধরে কোন কাজ করতে পারছিনা , সেজন্য সাড়ে চার বছরে নেতৃত্বকে প্রায় সাড়ে চারশো বার জানিয়ে ও কোন লাভ হয়নি বলে জানান বিধায়ক দীপক হালদার।

আরও পড়ুন : বসিরহাট তৃণমূলে বড়সড় ভাঙন, প্রায় ৮০০ নেতাকর্মী যোগ দিলেন বিজেপিতে

তিনি আরও জানান, যারা তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রীর কাছাকাছি থাকে তাদেরও জানিয়েছি বহুবার তারা বলেন ওটা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল কিছু করার ক্ষমতা নেই তাদের। এদিন কারোর নাম না করলেও ইঞ্জিত অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকে অভিযোগ তোলেন। তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান , বাংলার মানুষ এবং ডায়মন্ড হারবারের মানুষ জানে কার জন্য তৃণমূল কংগ্রেস দলটা ক্ষতি হচ্ছে। দল ছাড়লেও আগামী দিনে তিনি রাজনীতি করে যাবেন বলে জানান তিনি।

কোন রাজনীতি দলের সঙ্গে যুক্ত না থাকলে মানুষের পাশে থেকে কাজ করা যায় না সেকথা তিনি স্পষ্ট জানান। মানুষের কাজের জন্য তিনি বিধায়ক পদ ছাড়ছেন না তার কারন ডায়মন্ড হারবার বিধানসভা এলাকার মানুষের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। তারা বিধায়ককে পরামর্শ দিয়েছেন যে জনগণের ভোটে জিতে বিদায়ক পদ পেয়েছেন সেজন্য বিদায়ক পদ না ছাড়েন। তাই জনগণের অনুরোধে বিদায়ক পদ ছাড়বেন না বলে জানান।

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here