Latest: মাতৃভাষা দিবসে ভাষা বাঁচানোর শপথ ঝাড়গ্রামে

Latest: মাতৃভাষা দিবসে ভাষা বাঁচানোর শপথ ঝাড়গ্রামে

ঝাড়গ্রাম: অমর ২১শে! মোদের গরব, বাংলা ভাষা। জঙ্গলমহলের প্রাণকেন্দ্র ঝাড়গ্রাম জেলায় রবিবার সাড়ম্বরে পালিত হল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

ঝাড়গ্রাম জেলার মূল সরকারি অনুষ্ঠানটি হয় ঝাড়গ্রাম জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তরের উদ্যোগে ঝাড়গ্রাম জেলা তথ্যকেন্দ্রে। ওই অনুষ্ঠানে ছিলেন অতিরিক্ত জেলাশাসক (সাধারণ) পীযূষ গোস্বামী, জেলা সভাধিপতি মাধবী বিশ্বাস, জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারিক সঞ্জয় চক্রবর্তী, লোকসংস্কৃতি গবেষক সুব্রত মুখোপাধ্যায়, নাট্য ব্যক্তিত্ব কুন্তল পাল, দেবলীনা দাশগুপ্ত, সঙ্গীতশিল্পী ইন্দ্রাণী মাহাতো প্রমুখ।

মাতৃভাষা দিবসে ভাষা বাঁচানোর শপথ ঝাড়গ্রামে - West Bengal News 24

পরিবেশিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে লোকসংস্কৃতি গবেষক সুব্রত মুখোপাধ্যায় বাংলা ভাষার প্রসারের জন্য তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। বাংরেজিতে কথা বলতে অভ্যস্ত এখনকার প্রজন্মের একাংশ। তাই বাংলা ভাষাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য বাংলাভাষীদের শপথ নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারিক সঞ্জয় চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিলেন দেবলীনা দাশগুপ্ত। তাঁর পোশাক ও অলঙ্কারে বাংলাভাষার সহজপাঠ ফুটে উঠেছিল।

আরও পড়ুন : ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ স্লোগানের সূচনা ঝাড়গ্রামে

এদিন ঝাড়গ্রাম শহরের বলাকা মঞ্চে ‘কুড়মালি চিসই-আ টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর উদ্যোগে ভাষা দিবস পালন করা হয়। এছাড়া ঝাড়গ্রাম শহরের বিদ্যাসাগর স্মৃতি পাঠাগারে ঝাড়গ্রাম বইমেলা কমিটির উদ্যোগেও মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়।

বাংলা ভাষাকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে ভাষা আন্দোলনের মশাল জ্বালিয়েছিল বাংলাদেশ। ১৯৫২ সালে এই দিনই নিজের মাতৃভাষাকে মর্যাদা দেওয়ার লড়াইয়ে পথে নেমে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিল একাধিক তরতাজা প্রাণ। তাই এই দিনটি বাংলাদেশে শহিদ দিবস হিসেবেও পালিত। ভাষার জন্য আত্মত্যাগ করে রফিক, জব্বার, শফিউল, সালাম বরকতেরা আজ ইতিহাসের পাতায় স্থান করেছেন। বৃথা যায়নি তাঁদের বলিদান। ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর প্যারিস অধিবেশনে ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ২০০০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ২০১০ সালের পর থেকে রাষ্ট্রপুঞ্জও ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here