Latest: ঝাড়গ্রাম জেলায় পোলিং স্টেশন বাড়ল ২২২টি

Latest: ঝাড়গ্রাম জেলায় পোলিং স্টেশন বাড়ল ২২২টি

ঝাড়গ্রাম: অতিমারি করোনার কথা মাথায় রেখে ঝাড়গ্রাম জেলায় ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়াল নির্বাচন কমিশন। শনিবার নির্বাচন সংক্রান্ত সাংবাদিক বৈঠকে ঝাড়গ্রামের জেলাশাসক তথা জেলা নির্বাচন আধিকারিক আয়েষা রানি জানালেন, জেলায় ২২২টি পোলিং স্টেশন বাড়ানো হয়েছে। জেলায় আগে ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের সংখ্যা ছিল ১০৮৫টি। সেটা এখন ২২২টি বেড়ে হয়েছে ১৩০৭ টি।

ঝাড়গ্রাম জেলায় ভোটগ্রহণ হবে ২৭ মার্চ। ভোটগণনা হবে ২ মে। জেলার ৪ টি বিধানসভা। এর মধ্যে ঝাড়গ্রাম ও গোপীবল্লভপুর বিধানসভা দু’টি অ-সংরক্ষিত। নয়াগ্রাম ও বিনপুর বিধানসভা দু’টি আদিবাসী সংরক্ষিত আসন। জেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৯,১১,৬৫৪ জন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪,৫৭,০৫৭ জন এবং মহিলা ভোটার ৪,৫৪,৫৮৫ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছে ১২ জন। সার্ভিস ভোটারের সংখ্যা ১,২৬৬। জেলা নির্বাচন আধিকারিক জানান, করোনা পরিস্থিতির জন্যে জেলায় বুথের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের মতো এবারও ভিভি প্যাট থাকছে।

আরও পড়ুন : হাওড়ায় বসন্ত উৎসবে মাতলেন সঙ্গীত শিল্পী ইমন চক্রবর্তী

নয়াগ্রাম বিধানসভায় বুথের সংখ্যা ৩৩০ টি। মোট ২,২৬,৫০৮ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,১৫,০৮০ জন এবং মহিলা ভোটার ১,১১,৪২৮ জন। গোপীবল্লভপুর বিধানসভায় বুথের সংখ্যা ৩২৭ টি। ২,২৬,০৬১ জন ভোটারের মধ্যে ১,১৩,৭০৯ জন পুরুষ ও ১,১২,৩৫২ জন মহিলা ভোটার। ঝাড়গ্রাম বিধানসভায় বুথের সংখ্যা ৩২৮ টি এবং মোট ভোটার সংখ্যা ২,৩৫,৫৩৯ জন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,১৭,১৭৩ জন, মহিলা ভোটার ১১৮৩৫৫ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার ১১ জন। বিনপুর বিধানসভায় ৩২২ টি বুথ। ২,২৩,৫৪৬ জন মোট ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,১১,০৯৫ জন, মহিলা ভোটার ১,১২,৪৫০ এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার এক জন।

ভোটের কাজে জেলায় ২৭৭ টি বড় গাড়ি, ১৮৭ টি মাঝারি গাড়ি এবং ৪৩১ টি ছোটগাড়ি এবং আরও ১৪১টি অন্যান্য গাড়ি প্রয়োজন। জেলায় এত গাড়ি নেই বলে নিকটবর্তী জেলা ও রাজ্য থেকে গাড়ি নেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জেলা নির্বাচন আধিকারিক জানান। ভোটার তালিকায় নাম থাকা কোনও ভোটারের যদি ভোটার কার্ড না থাকে তাহলে কমিশন স্বীকৃত ১১টি আইডি প্রুফ দেখিয়ে ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা থাকছে। আয়েষা রানি জানান, এবার করোনা পরিস্থিতির জন্য নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রত্যেক ভোটকর্মীকে করোনার প্রতিষেধক দেওয়া হচ্ছে।

প্রত্যেক বুথে কিছু বিশেষ ব্যবস্থা থাকছে। যাঁরা বুথে ডিউটি করবেন, তাঁদের জন্য ৬ টি করে মাস্কের সেট, ১০০ এমএল স্যানিটাইজার ও ফেস শিল্ড থাকছে। ভোটারদের মাস্ক পরে বুথে আসতে হবে। প্রত্যেক ভোটারকে একটি করে ডিসপোজ়েবল গ্লাভস দেওয়া হবে। কারণ ভোটযন্ত্রে বার বার স্পর্শের একটা ব্যাপার থাকছে। তাই ভোটদানের আগে এই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ভোটারদের জন্যও বুথে স্যানিটাইজ়ারের ব্যাবস্থা থাকছে। বুথের বাইরে শরীরের তাপমাত্রা মাপার জন্য থার্মাল গানও থাকবে। কোনও ভোটারের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হলে তাঁকে সবার শেষে ভোট দেওয়ার অনুরোধ করা হবে। সেক্ষেত্রে পিপিই কিটও থাকবে।



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here