Latest: West Bengal Assembly Election 2021 : প্রার্থীপদ না পাওয়ার অসন্তোষে বিজেপি ছাড়লেন শোভন-বৈশাখী

Latest: West Bengal Assembly Election 2021 : প্রার্থীপদ না পাওয়ার অসন্তোষে বিজেপি ছাড়লেন শোভন-বৈশাখী

বিজেপিকে বড়সড় চাপের মুখে ফেলে দিয়ে পদ্মশিবির ছাড়ার কথা জানিয়ে দিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। মূলত বৈশাখীকে প্রার্থী না করায় ও শোভনকে বেহালা পূর্ব কেন্দ্র থেকে প্রার্থী না করার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এদিনই তাঁরা রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষকে চিঠি দিয়ে এই কথা জানিয়ে দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। একই সঙ্গে তাঁরা বিজেপির দলীয় পদ থেকেও পদত্যাগ করেছেন বলে জানা গিয়েছে। এমনিতেই শোভন-বৈশাখীকে ঘিরে বিজেপি এর আগে বেশ কয়েকবার নাজেহাল দশার মধ্যে পড়েছে। কিন্তু সেক্ষেত্রে কোনওবারই শোভন-বৈশাখীর দল ছাড়ার কথা বলেননি। কিন্তু এবার প্রার্থীপদ নিয়ে তাঁরা চূড়ান্তরকম ক্ষুব্ধ বলেই জানা গিয়েছে। আর তার জেরেই তাঁদের বিজেপি ত্যাগের এই সিদ্ধান্ত।

আরও পড়ুন : শিল্পীসত্ত্বার আবেগ উস্কে বিজেপি প্রার্থীর খোলা চিঠি

শোভন ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথম থেকেই রাজ্যের এই প্রাক্তন মন্ত্রী চেয়েছেন দল তাঁকে প্রার্থী করলে তা তা৬র নিজের কেন্দ্র পূর্ব বেহালা থেকেই যেন করে। একই সঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কেও যেন ভাল কোনও আসন দেওয়া হয়। কিন্তু কার্যত প্রথম চার দফায় যে সব আসনে ভোট হতে চলেছে ২৭শে মার্চ থেকে ১০ এপ্রিলের মধ্যে সেখানে কোনও আসনেই যেমন বৈশাখীকে প্রার্থী করা হয়নি তেমনি এদিন বেহালা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করা হয়েছে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। সেখানে টিকিট দেওয়া হয়নি শোভনকে। এরপরই এদিন শোভন ও বৈশাখী একযোগে বিজেপির সব পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পাশাপাশি দল ছাড়ার কথা জানিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে চিঠি দিয়েছেন।

সেখানে তাঁরা যেমন তাঁদের ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন তেমনি প্রশ্ন তুলেছেন কেন বেহালা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্র থেকে শোভন চট্টোপাধ্যাকে টিকিট দেওয়া হল না? যদিও এই ঘটনার জেরে বিজেপি যেমন কিছু জানায়নি তেমনি শোভন বৈশাখীর চিঠি আদৌ দিলীপ ঘোষ পেয়েছেন কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। কেননা দিলীপবাবু এদিন রয়েছেন খড়গপুরে। সেখানে বিজেপির প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের হয়ে রোডশো করছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সেই কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন দিলীপবাবুও।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে শোভন-বৈশাখীর সামনে ভবিষ্যত কী? কী করবেন তাঁরা? কোন শিবিরে ভিড়বেন? তৃণমূলে তাঁদের ফেরার সম্ভাবনা খুবই কম। বাম-কংগ্রেস তাঁদের নিয়ে কোনওদিনই কোনও আগ্রহ দেখায়নি। নতুন করে সেই আগ্রহ দেখাবে বলে মনেও হয় না। আর বিজেপি কার্যত তাঁদের বুঝিয়ে দিল যে দলে তাঁদের কোনও গুরুত্বই নেই। তাঁরা দলে থাকলেন কী থাকলেন না তাতে তাঁদের কিছু যায় আসে না। এটা সত্যি কথা যে সাময়িক ভাবে শোভন-বৈশাখীর জেরে কিছুটা হলেও ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি। বিশেষ করে দক্ষিন কলকাতায় তাঁদের কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে পড়ে যেতে হবে। কিন্তু সেই দশা তাঁরা হয়তো কাটিয়েও উঠবেন। কিন্তু শোভন-বৈশাখী এখন কী করবেন, এটাই লাখ টাকার প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওয়াকিবহাল মহল কিন্তু মনে করছেন শোভন-বৈশাখী কার্যত বিজেপির সঙ্গে ব্ল্যাকমেলিংয়ের রাজনীতি শুরু করেছেন যা তাঁদের নিজেদের ভাবমূর্তি ও রাজনৈতিক বিশ্বাসযোগ্যতাকেও ক্ষতিগ্রস্ত করছে।



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here