Latest: কেষ্ট এসে মনোবল বাড়ালেন কর্মীদের

Latest: কেষ্ট এসে মনোবল বাড়ালেন কর্মীদের

ঝাড়গ্রাম: বীরভূমের মাটিতে বলেছিলেন ‘ভয়ঙ্কর খেলা হবে’। ঝাড়গ্রামে তাঁর উপস্থিতিতেই মনোবলের পারদ চড়ল কর্মীদের। তিনি অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্টদা। জঙ্গলমহলের ভোটের বাজারে তারকা নেতাকে দেখতে শনিবার উপচে পড়ল জনস্রোত!

এদিন ঝাড়গ্রাম শহরে রোড শো করেন অনুব্রত। তাঁর সঙ্গে ছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক ছত্রধর মাহাতো, ঝাড়গ্রাম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী বিরবাহা হাঁসদা, জেলা তৃণমূলের দুই কো-অর্ডিনেটর অজিত মাহাতো ও উজ্জ্বল দত্ত, তৃণমূলের রাজ্য এসটি সেলের সদস্য সুরজিৎ হাঁসদা, টিএমসিপি-র জেলা সভাপতি আর্য ঘোষ, জেলা পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শুভ্রা মাহাতো প্রমুখ। বীরভূমের চর্চিত জেলা সভাপতি অনুব্রতকে দেখার জন্য রাস্তার দু’ধারে ভিড় করেছিলেন লোকজন। চৈত্র মাসের দুপুর রোদে গায়ে যেন আগুনের হল্কা! ‘নকুলদানা’, ‘চড়াম-চড়াম’-এর প্রবক্তা ঘেমেনেয়েও হাসিমুখে জনতার উদ্দেশ্যে হাত নেড়েছেন।

কেষ্ট এসে মনোবল বাড়ালেন কর্মীদের - West Bengal News 24

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রার্থীদের জেতানোর জন্য জোড়হাতে আবেদনও করেছেন। অনুব্রতর রোড শো-র সামনে যুব তৃণমূলের কর্মীরা ‘ব্যাট বল’ নিয়ে রাস্তায় প্রতীকী খেলার বার্তাও দিয়েছেন। সুসজ্জিত রোড শোতে দলের কর্মীদের উন্মাদনা ছিল চোখে পড়ার মত। তৃণমূল কর্মী লক্ষ্মী দে সবুজ সালোয়ার পরে নাচতে-নাচতে বলছিলেন, “কেষ্টদা আসায় কর্মীদের মনোবল তিনগুণ বেড়ে গিয়েছে। খেলা হবে। বিজেপি খেলায় হারবে।”

আরও পড়ুন : ‘সুনার বাংলা’ নিয়ে ঝাড়গ্রামের সভায় বিজেপিকে কটাক্ষ অভিষেকের

পথ চলতি বাইক আরোহী যুবকেরা ‘বীরভূমের বাঘ’কে দেখে কেউ ‘চড়াম-চড়াম’ বলে চিৎকার করেছেন। কেউ আবার অনুব্রতকে লক্ষ‍্য করে বলেছেন, “বিজেপিকে শুঁটিয়ে লাল করে দিতে হবে দাদা।” গরমে ক্লান্ত অনুব্রত রুমালে মুখ মুছে হেসেছেন।

কেষ্ট এসে মনোবল বাড়ালেন কর্মীদের - West Bengal News 24

এদিন রোড শো-র পরে সাঁকরাইলের কেশিয়াপাতায় দলীয় সভায় অনুব্রত বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১১ ও ২০১৬-র নির্বাচনে যা-যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সব পালন করেছেন। তিনি অত্যন্ত সাধারণ ভাবে জীবনযাপন করেন আর বাংলার মানুষকে ভাল রাখার জন্য সব সময় কাজ করে যান।

অন্যদিকে, বিজেপি যে সব রাজ্যে আছে সেখানে মানুষ ভাল নেই। প্রধানমন্ত্রী গুজরাতকে সোনার গুজরাত বানাতে পারেননি আর এখানে সোনার বাংলা গড়ার মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন।” ঝাড়খণ্ড রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতা থেকে সরায় হেমন্ত সরেনের নেতৃত্বে সেখানকার মানুষ ভাল আছেন বলে মন্তব্য করেন অনুব্রত। জনতার উদ্দেশে ‘বীরভূমের বাঘ’-এর কাতর মিনতি, “ভুল করবেন না। সবার ভালর জন্য আবার তৃণমূলকেই ক্ষমতায় আনুন। কারণ পশ্চিমবঙ্গের শান্তি ও উন্নয়নের একমাত্র বিকল্প মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া আর কেউ নন।”



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here