Latest: মীরজাফর শুভেন্দুর ভাই সারাদিন মদ খায়, ঝাড়গ্রামের সভায় বললেন সৌগত

Latest: মীরজাফর শুভেন্দুর ভাই সারাদিন মদ খায়, ঝাড়গ্রামের সভায় বললেন সৌগত

ঝাড়গ্রাম: দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে আয়োজিত আদিবাসী ঐক্য মঞ্চের সভায় বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নজিরবিহীন ভাষায় আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেতা সৌগত রায়। বুধবার বিকেলে ঝাড়গ্রাম শহরের জামদা সার্কাস ময়দানে ওই আদিবাসী সমাবেশে তৃণমূল সাংসদ সৌগত বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী একটা বিশ্বাসঘাতক, বেইমান, মীরজ়াফর, দলবদলু, নিমকহারাম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে মন্ত্রী করেছিল। কাঁথিতে তার বাড়ি। তিনটে দফতরের মন্ত্রী ছিল। আরও বড় হতে চায়। তাই মমতার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে।

তার বাপ শিশির। সে এতদিন চুপচাপ ছিল। দু’দিন আগে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছে। তার একটা ভাই আছে দিব্যেন্দু। সারাদিন মদ খায়, কোনও কাজ করে না। সেও বিজেপিতে যাবে। এরা বেইমানরা ইতিহাস তৈরি করে না। সিধু-কানু, বিরসা মুন্ডা যখন লড়েছিল, অনেক লোক ব্রিটিশের সঙ্গে সহযোগিতা করেছিল। কিন্তু ইতিহাসে সিধু-কানু, বিরসা অমর হয়ে আছে। বেইমানদের নাম কেউ মনে রাখে না। তাই বেইমানদের পার্টিকে হারিয়ে দিতে হবে। বিজেপি মানে ভারতীয় জুমলা পার্টি।”

পুলিশের একাংশ তৃণমূলের বিরুদ্ধে কাজ করছে অভিযোগ তুলে সৌগত বলেন, “আপনারা এখন নির্বাচন কমিশনের অধীন, কিন্তু আমরা যদি দেখি তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোনও পক্ষপাতমূলক আচরণ আপনারা করছেন, মনে রাখবেন ২ মে-র পরে একটা পশ্চিম বাংলা থাকবে। যাঁরা পক্ষপাতিত্ব করবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে কিন্তু আমরা ঠিকমতো ব্যবস্থা নেব, এটা মনে রাখবেন। অন্যায় করে কোনও পুলিশ আধিকারিক ছাড়া পাবেন না।”

আরও পড়ুন : ঝাড়গ্রাম শ্রমজীবী ক্যান্টিনে ‘জুন আন্টি’!

২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনে বিজেপির জয় প্রসঙ্গে সৌগত বলেন, “এখানে বিজেপি ঝাঁপিয়ে পড়েছে। আমাদের দুর্ভাগ্য গত লোকসভায় আমরা এই এসটি আসন হেরে গিয়েছিলাম। তার পর থেকে বিজেপি জেলার চারটি সিট পাওয়ার জন্য ঝাঁপিয়েছে। ওদের সব নেতারা এখানে আসছে। ওরা সারা দেশের আদিবাসী এলাকা দখল করতে চায়। আদিবাসীদের জল-জঙ্গল-জমি দখল করে পুঁজিপতিদের হাতে তুলে দিতে চায়।” ঝাড়গ্রামের বিজেপি প্রার্থী সুখময় শতপথী টাকা ছড়িয়ে ভোট কিনছেন অভিযোগ করে সৌগত বলেন, “এই সব মাল (সুখময়) আজকে বিজেপির ক্যান্ডিডেট হয়েছেন।

এখানে একটা সিপিএমের প্রার্থী আছে। সে ঝাড়গ্রামের মেয়ে হলেও সে কোনও দিন এখানে থাকেনি কলকাতায় থাকত। এখন এসে ঘোরাঘুরি করছে। ঝাড়গ্রামের মাটির মেয়ে যদি কাউকে বলা যায় একমাত্র বিরবাহা হাঁসদা এটা আপনারা মনে রাখবেন। আমরাই একমাত্র দল জেনারেল সিটে আদিবাসী প্রার্থী দিয়েছি। আমরা মনে করি ঝাড়গ্রামের চারটি আসন আদিবাসীদের পাওয়া উচিত। কারণ যাতে করে তারা তাদের জল-জঙ্গল-জমির দখল রাখতে পারে।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কটাক্ষ করে সৌগত বলেন, “ওই মোদী বড় দাড়ি রেখেছে। রবীন্দ্রনাথ হতে চাইছে। ও রবীন্দ্রনাথ হবে না। ও ঠগেন্দ্রনাথ ঠাকুর। ও ঠগ। মানুষকে ঠকাবার জন্য দাড়ি রেখে বলছে দেখো আমি রবীন্দ্রনাথ। ও একটা জোকার। সব মিথ্যে কথা বলে।”



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here