Latest: হালিশহরে ভোট দিতে যাওয়ার পথে ‘হামলা’, জখম তৃণমূল কর্মী

Latest: হালিশহরে ভোট দিতে যাওয়ার পথে ‘হামলা’, জখম তৃণমূল কর্মী

ষষ্ঠ দফার ভোটে সকাল থেকেই উত্তেজনা ছড়িয়েছে উত্তর ২৪ পরগনার বীজপুরে। কাঁচরাপাড়ায় তৃণমূল কর্মীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, হালিশহরে তৃণমূল কর্মীকে ছুরির কোপ মারা হয়েছে বলে অভিযোগ। আবার বীজপুরে বিজেপির মণ্ডল সভাপতির বাড়িতে হামলা হয়েছে। বিজেপি নেতা, তাঁর স্ত্রী ও মাকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এলাকায় মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী ও কেন্দ্রীয় বাহিনী।

সূত্রের খবর, হালিশহর কোনা কলোনি এলাকায় তৃণমূল কর্মী মাধব দাসের ওপর হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। এলোপাথাড়ি ছুরি কোপ বসানোর চেষ্টা হয়েছে। মাধব বলেছেন, ‘আমি ভোট দিয়ে ফিরছিলাম। তখন আমার রাস্তা আটকায় কয়েকজন। কেন ভোট দিয়েছি জিজ্ঞেস করছিল ওরা। আমি আমার কার্ড দেখাই। তারপরেই ওরা মারতে শুরু করে। ছুরি চালিয়ে দেয়।’

খবর পেয়েই এলাকায় পৌঁছয় বীজপুর থানার পুলিশ। মাধবের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। যদিও বিজেপির তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। উত্তেজনা ছড়িয়েছে বীজপুরের দাসপাড়া এলাকাতেও। সূত্রের খবর, বিজেপির মণ্ডল সভাপতি রাধাকান্ড রায়ের বাড়িতে ঢুকে পড়ে হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। বিজেপি নেতাকে মারধর করা হয়েছে, মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ, দুষ্কৃতী বিজেপি নেতাকে মারতে শুরু করলে আটকাতে যান তাঁর স্ত্রী ও বৃদ্ধা মা। তাঁদেরকেও রেহাই দেওয়া হয়নি।

রাধাকান্তবাবুর বয়স্ক মাকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। জখম হয়েছেন তাঁর ভাইও। বিজেপি নেতার বাড়িতে হামলার খবর পেয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন স্থানীয় বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। জানা গিয়েছে, দুই পক্ষের তুমুল অশান্তি চলছে এলাকায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করতে হয়েছে পুলিশকে। এলাকায় পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় বাহিনীও। আজ সকালে কাঁচরাপাড়া ২০ নম্বর ওয়ার্ডের দু’বারের কাউন্সিলর উত্‍পল দাসগুপ্তকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। তাঁকে ভোট কেন্দ্র থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে মারা হয়েছে বলে দাবি। জখম গুরুতর। তাঁকে কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সুত্র : দ্য ওয়াল

Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here